পাতা

সিটিজেন চার্টার

 

নারায়ণগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১

চেঙ্গাইন, সোনারগাঁ, নারায়ণগঞ্জ।

সিটিজেন চার্টার

(নাগরিক অধিকার সনদ)

‘‘গ্রাহক সেবা নির্দেশিকা’’

১)  টেলিফোন /মোবাইল নম্বরসমূহঃ

 ০১.

সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার, নারায়ণগঞ্জ পবিস-১ মোবাইল ০১৭৬৯৪০০০৫৫
 ০২. ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (কারিগরি), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৩০৭৮৩৩৩৮
 ০৩. ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, মদনপুর জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০২১০
 ০৪. ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, সোনারগাঁ জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০২১১
 ০৫. ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, বন্দর জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০২১৬
০৬. ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, তারাবো জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০২১৫
 ০৭. এজিএম(ও অ্যান্ড এম), নবীগঞ্জ  সাব জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০২৫৬৩
 ০৮. এজিএম(ও অ্যান্ড এম), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪৫
 ০৯. এজিএম(ও অ্যান্ড এম), মদনপুর জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৫১
 ১০. এজিএম(ও অ্যান্ড এম), সোনারগাঁ জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪৩
 ১১. এজিএম(ও অ্যান্ড এম), বন্দর জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪০
 ১২. এজিএম(ও অ্যান্ড এম), তারাবো জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪২
 ১৩. এজিএম(ইএন্ড সি), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪৭
 ১৪. এজিএম(প্রশাসন), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪৯
 ১৫. এজিএম(এইচ আর), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০২০০৩
 ১৬. এজিএম(সদস্য সেবা), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪৬
 ১৭. এজিএম(অর্থ-হিসাব), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৪৮
 ১৮. এজিএম(অর্থ- রাজস্ব), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৬৫০
 ১৯. এজিএম(পি অ্যান্ড এম), সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৩০৭৯৪৭৫২
 ২০. ইনচার্জ সোনারগাঁ গ্রীড মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৪
 ২১. অভিযোগ কেন্দ্র, সদর দপ্তর মোবাইল ০১৭৩০৭৮৩২৯৯
 ২২. অভিযোগ কেন্দ্র, নয়াপুর(তালতলা) এরিয়া অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬১
 ২৩. অভিযোগ কেন্দ্র, মদনপুর জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬২
 ২৪. অভিযোগ কেন্দ্র, কাঁচপুর মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৩
 ২৫. অভিযোগ কেন্দ্র, তারাবো জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৪৮
 ২৬. অভিযোগ কেন্দ্র, বরপা এরিয়া অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৪৭
 ২৭. অভিযোগ কেন্দ্র, সোনারগাঁ জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৫
 ২৮. অভিযোগ কেন্দ্র, মেঘনা ঘাট এরিয়া অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৬
২৯. অভিযোগ কেন্দ্র, আনন্দবাজার মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৭
  ৩০. অভিযোগ কেন্দ্র, বারদী মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৮
 ৩১. অভিযোগ কেন্দ্র, বাংলাবাজার মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৬৯
 ৩২. অভিযোগ কেন্দ্র, হোসেনপুর মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৭০
 ৩৩. অভিযোগ কেন্দ্র, বন্দর জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৭১
৩৪. অভিযোগ কেন্দ্র, নবীগঞ্জ সাব জোনাল অফিস মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৭২
৩৫. অভিযোগ কেন্দ্র, লাঙ্গলবন্দ মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৭৩
৩৬. অভিযোগ কেন্দ্র, লক্ষনখোলা মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৭৪
৩৭ অভিযোগ কেন্দ্র, মদনগঞ্জ মোবাইল ০১৭৬৯৪০১৫৭৫
৩৮ অভিযোগ কেন্দ্র, কলাগাছিয়া মোবাইল ০১৭৬৯৪০২০০৪

 

১)  ই-মেইল নংঃ narayanganj_pbs1@yahoo.com

২)  ওয়েব সাইটঃ pbs1.narayanganj.gov.bd

 

নতুন সংযোগ গ্রহণ

 

  • ‘‘এক অবস্থানে সেবা কেন্দ্র’’ থেকে  নতুন সংযোগের আবেদনপত্র পাওয়া যাবে অথবা অত্র সমিতির ওয়েব সাইট www.pbs1.narayanganj.gov.bd  থেকে অনলাইনে আবেদন করা যাবে।
  • আবেদনপত্রটি যথাযথভাবে পুরণ করে নির্ধারিত সমীক্ষা ফি সমিতির ক্যাশ কাউন্টারে জমা প্রদান করে জমা রশিদ ও আবেদনপত্রটি‘‘এক অবস্থানে  সেবা’’-এ জমা করলে আপনাকে আবেদন পত্রের ক্রমিক  নম্বর জানিয়ে দেয়া হবে। 
  • ৭ দিনে আবাসিক ও ২৮ দিনে  শিল্প সংযোগ ( সার্ভিস ড্রপের আওতায়) দেওয়া হবে । ৭(সাত) দিনের মধ্যে সমিতি কর্তৃক সমীক্ষা সম্পাদন করা হবে।
  • সমিতি কর্তৃক সমীক্ষা সম্পাদনের পর পরবর্তী ৭(সাত) দিনের মধ্যে সমিতির কারিগরী উপদেষ্টা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ষ্টেকিং শীট(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) প্রস্ত্তত করা হবে। মালামাল প্রাপ্তি সাপেক্ষে ডিমান্ড নোট ও প্রাক্কলন ইস্যূ করা হবে।
  • ডিমান্ড নোটে উলেস্নখিত প্রাক্কলন সমিতির ক্যাশ কাউন্টারে জমা প্রদান করার পর ঠিকাদার কর্তৃক লাইন নির্মাণের কাজ(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) সম্পন্ন করা হবে।
  • পরবর্তীতে সমিতির প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ইলেকট্রিশিয়ান দ্বারা আভ্যন্তীরন ওয়্যারিং সম্পন্ন করে রিপোর্ট দাখিল করতে হবে।
  • ওয়্যারিং রিপোর্ট দাখিলের পর সমিতির ওয়্যারিং পরিদর্শক কর্তৃক ওয়্যারিং পরিদর্শন করা হবে।
  • ওয়্যারিং পরিদর্শনের পর বিলিং শাখা কর্তৃক সিএমও অর্থাৎ মিটার স্থাপনের অর্ডার তৈরী করা হবে।
  • সিএমও তৈরীর পর নিপর বিভাগ কর্তৃক মিটার স্থাপনের ব্যবস্থা করা হবে।
  • যে কোন কারণে সংযোগ প্রদান সম্ভব না হলে আবেদনকারীকে পত্রের মাধ্যমে অবহিত করা হবে।
  • মিটার স্থাপনের পরবর্তী মাসের বিলিং সাইকেল অনুযায়ী গ্রাহকের প্রথম মাসের বিল ইস্যূ করা হবে।

 

নতুন সংযোগের জন্য দলিলাদি

০১।  আবাসিক/বানিজ্যিক (এল. টি ) সংযোগের ক্ষেত্রেঃ

অফ লাইনের  যে সমস্ত কাগজপত্র জমা দিতে হবে ।
আবেদনকারীর স্বাক্ষর সম্বলিত যথাযথভাবে পূরণকৃত ১ কপি ছবিসহ আবেদনপত্র  (মোবাইল নম্বর  সহ)
জমির দলিল অথবা পর্চা অথবা নামজারীর কাগজ  অথবা ভাড়ার চুক্তিপত্র অথবা পাওয়ার অফ এ্যাটোর্নি এর  সত্যায়িত কপি ।
পূর্বে কোন স্থায়ী অথবা অস্থায়ী সংযোগ থাকলে সর্বশেষ পরিশোধিত বিলের ফটোকপি ।
মোট= ০৩ টি

 

০২।  আবাসিক/বানিজ্যিক (এইচ. টি ) সংযোগের ক্ষেত্রেঃ

অফ লাইনের  যে সমস্ত কাগজপত্র জমা দিতে হবে ।
আবেদনকারীর স্বাক্ষর সম্বলিত যথাযথভাবে পূরণকৃত ১ কপি ছবিসহ আবেদনপত্র ( মোবাইল নম্বর সহ )
জমির দলিল অথবা পর্চা অথবা নামজারীর কাগজ  অথবা ভাড়ার চুক্তিপত্র অথবা পাওয়ার অফ এ্যাটোর্নি এর সত্যায়িত কপি ।
পূর্বে কোন স্থায়ী অথবা অস্থায়ী সংযোগ থাকলে সর্বশেষ পরিশোধিত বিলের ফটোকপি ।
মোট= ০৩ টি

 

০৩।  সকল প্রকার শিল্প (এল. টি) সংযোগের ক্ষেত্রে

অফ লাইনের  যে সমস্ত কাগজপত্র জমা দিতে হবে ।
আবেদনকারীর স্বাক্ষর সম্বলিত যথাযথভাবে পূরণকৃত ১ কপি ছবিসহ আবেদনপত্র ( মোবাইল নম্বর সহ)
জমির দলিল অথবা পর্চা অথবা নামজারীর কাগজ  অথবা ভাড়ার চুক্তিপত্র অথবা পাওয়ার অফ এ্যাটোর্নি এর সত্যায়িত কপি ।
পূর্বে কোন স্থায়ী অথবা অস্থায়ী সংযোগ থাকলে সর্বশেষ পরিশোধিত বিলের ফটোকপি ।
ট্রেড  লাইসেন্স অথবা শিল্প নিবন্ধন সার্টিফিকেট এর সত্যায়িত কপি ।
লে- আউট প্ল্যানের কপি ।
মোট= ০৫ টি

 

০৪।  সকল প্রকার শিল্প (এইচ. টি) সংযোগের ক্ষেত্রেঃ

অফ লাইনের  যে সমস্ত কাগজপত্র জমা দিতে হবে ।
আবেদনকারীর স্বাক্ষর সম্বলিত যথাযথভাবে পূরণকৃত ১ কপি ছবিসহ আবেদনপত্র ( মোবাইল নম্বর সহ )
জমির দলিল অথবা পর্চা  অথবা নামজারীর কাগজ  অথবা ভাড়ার চুক্তিপত্র অথবা  পাওয়ার অফ এ্যাটোর্নি এর সত্যায়িত কপি ।
পূর্বে কোন স্থায়ী অথবা অস্থায়ী সংযোগ থাকলে সর্বশেষ পরিশোধিত বিলের ফটোকপি ।
ট্রেড লাইসেন্স অথবা শিল্প নিবন্ধন সার্টিফিকেট এর সত্যায়িত কপি ।
প্রস্তাবিত উপকেন্দ্রের লে-আউট  ও সিঙ্গেল লাইন ডায়াগ্রাম ।
মোট= ০৫ টি

 

আবাসিক/বানিজ্যিক (এল.টি) সংযোগের ক্ষেত্রেঃ

অন- লাইনের  যে সমস্ত কাগজপত্র জমা দিতে হবে ।
আবেদনকারীর ১ কপি ( স্ক্যান ) ছবি ( মোবাইল নম্বর সহ)
জমির দলিল অথবা পর্চা অথবা নামজারীর কাগজ অথবা ভাড়ার চুক্তিপত্র অথবা পাওয়ার অফ এ্যাটোর্নি এর  স্ক্যান কপি ।
জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর এন্ট্রি দিতে হবে।
মোট= ০৩ টি

 

নতুন সংযোগের জন্য আবেদন ফি

 

১) বাড়ী/বানিজ্যিক/দলগত/দাতব্য প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য নিম্নবর্ণিত হারে সমীক্ষা ফি আবেদনের সহিত জমা দিতে হবে।

গ্রাহক শ্রেণি/প্রযোজ্যতা ফি/চার্জ (টাকা)
এলটি ক)  এক ফেজ ১০০.০০
খ)  তিন ফেজ ৩০০.০০
এমটি এবং এইচটি   ১০০০.০০
ইএইচটি   ২০০০.০০
অস্থায়ী সংযোগের আবেদন ফি এলটি ক)  এক ফেজ ২৫০.০০
খ)  তিন ফেজ ৫০০.০০
এমটি ১০০০.০০

২) পোল স্থানান্তর/লাইন রুট পরিবর্তন/স্থাপিত সার্ভিস ড্রপ স্থানামত্মর আবেদনের ক্ষেত্রে ১৫০০.০০ টাকা সমীক্ষা ফি জমা দিতে হবে।

৩)  একই ট্রান্সফরমারের আওতায় সার্ভিস ড্রপ স্থানামত্মর আবেদনের জন্য ৫০০.০০ টাকা সমীক্ষা ফি জমা দিতে হবে।

৪)  লোড বৃদ্ধির জন্য   (০-০৩) কিঃ ওঃ ৫০০.০০ টাকা ।

(০৩কিঃওঃ উর্দ্ধে ১০)                   ১০০০.০০ টাকা।

(১০কিঃওঃ উর্দ্ধে ৪৫)                   ২০০০.০০ টাকা।

          (৪৫ কিঃ ওঃ তদুর্ধ)                    ৫০০০.০০ টাকা।

 

নতুন সংযোগের জন্য জামানতের পরিমান

 

গ্রাহক শ্রেণি অনুমোদিত লোড সীমা (কি. ও.) জামানতের হার (টাকা/ কি. ও.)
এলটি-এ এবং এলটি-বি ২ কি. ও. পর্যন্ত ৪০০.০০
এলটি-এ এবং এলটি-বি ২ কি. ও. এর উর্দ্ধে ৬০০.০০

এলটি-সি ১, এলটি-সি ২, এলটি-ডি ১,

এলটি-ডি ২, এলটি-ই এবং এলটি- টি

সকল ৮০০.০০
এমটি, এইচটি এবং ইএইচটি সকল ১০০০.০০
  • সকল সংযোগের ক্ষেত্রেই জমি /স্থাপনা ব্যক্তির নিটক হতে লিজ গ্রহন করলে প্রতি কিঃ ওঃ / ভগ্নাংশের জন্য অতিরিক্ত ১০০০.০০ টাকা । সরকারির জায়গায় লিজ গ্রহন করলে প্রতি কিঃ ওঃ ভগ্নাংশের জন্য ৫০০.০০ হারে যোগ হবে।

অস্থায়ী বিদ্যুৎ সংযোগঃ

 

  • সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান,মেলা এবং নির্মাণ কাজের নিমিত্তে স্বল্পকালীন সময়ের জন্য বিদ্যুৎ সংযোগ গ্রহণ করতে পারবেন। আবেদন ফি এর সাথে নিমণলিখিত শর্ত প্রযোজ্যঃ
  • মালামালের মূল্য ১১০% দিতে হবে সংযোগ শেষে ব্যবহারযোগ্য মালামালের ১০০% মূল্য ফেরতযোগ্য।
  • এলটি-টির অস্থায়ী সংযোগের ক্ষেত্রে প্রতি ইউনিট ১৬.০০ টাকা হারে জমা প্রদান করতে হবে।
  • ট্রান্সফরমার ভাড়া।
  • ট্রান্সফরমার উঠানো-নামানো খরচ।
  • সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণের পর মিটারের প্রকৃত ব্যবহারের উপর বিল সমন্বয় করা হবে।
  • উলেস্নখিত শর্তাবলী প্রতিপালন সাপেক্ষে চাহিদার দিন থেকে অস্থায়ী সংযোগ দেয়া হবে। গ্রাহক জমা অর্থ মাসিক বিদ্যুৎ বিলের সাথে সমন্বয় করা হবে। যদি অস্থায়ী সংযোগ  প্রদান করা সম্ভব না হয় তবে তার কারণ জানিয়ে গ্রাহককে একটি পত্র দেয়া হবে।

লোড পরিবর্তনঃ

  •  লোড পরিবর্তন আবেদন ফি প্রদান করতে হবে।
  • পুনঃ চুক্তি সম্পাদন করতে হবে।
  • লোড বৃদ্ধির জন্য বর্ণিত লোডের কিলোওয়াট প্রতি বিদ্যমান হারে জামানত প্রদান করতে হবে।
  • অতিরিক্ত লোডের জন্য বিতরণ লাইন/ট্রান্সফরমার/সার্ভিস তার/মিটার বদলানোর প্রয়োজন হলে উক্ত ব্যয় গ্রাহককে বহন করতে হবে।
  • প্রাক্কলন ও জামানতের অর্থ জমা দানের পর চুড়ামত্ম পুর্ন ওয়্যারিং পরিদর্শনের পর লোড বৃদ্ধি কার্যকর করা হবে। যদি লোড বৃদ্ধি করা সম্ভবপর না হয় তবে তার কারণ জানিয়ে গ্রাহককে একটি পত্র দেয়া হবে।

গ্রাহকের নাম পরিবর্তন পদ্ধতিঃ

 

গ্রাহকের নাম পরিবর্তনের জন্য নিমণবর্ণিত পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবেঃ-

  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • গ্রাহক ক্রয়সূত্রে/নিজ সূত্রে জায়গা বা প্রতিষ্ঠানের মালিক হলে সকল দলিলের
  • সত্যায়িত ফটোকপি ও সর্বশেষ পরিশোধিত বিলের কপি সমিতির সদর দপ্তরে জমা দিতে হবে।
  • মরনোত্তর ওয়ারিশ সূত্রে হলে মৃত ব্যক্তির মৃত্যু সনদপত্র এবং ওয়ারিশনামা ও  অন্যান্য
  • ওয়ারিশগণের না দাবী পত্র চেয়ারম্যান কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে।
  • পূর্বের নামীয় হিসাবের সকল বিদ্যুৎ বিল তথা আনুষাঙ্গিক পাওনাদি পরিশোধ থাকতে হবে।
  • নতুন নামে সদস্য হতে হবে।মরনোত্তর এর জন্য বর্তমান হারে বর্ধিত ও অন্যান্য ক্ষেত্রে নতুন নামে বর্তমান হারে জামানত দিতে হবে ।
  • নতুন নামে ০২ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি এবং নির্ধারিত হারে জামানত জমা দিতে হবে।
  • নতুন নামে চুক্তিপত্র সম্পাদন করতে হবে (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।
  • নাম পরিবর্তন ফি নিমণবর্ণিত হারে জমা দিতে হবে। সকল ০৩ ফেজ সংযোগ ১০০০.০০ টাকা,  সকল ০১ ফেজ শিল্প ও সেচ সংযোগ  ৫০০.০০ টাকা, সকল
  • বানিজ্যিক সংযোগ ২০০.০০ টাকা , সকল আবাসিক সংযোগ ১০০.০০ টাকা । 

এক অবস্থানের সেবাঃ

 

পল্লী  বিদ্যুৎ সমিতির ‘‘এক অবস্থানে সেবা’’ এ নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ, বিল, মিটার সংক্রান্ত অভিযোগ, বিল পরিশোধের ব্যবস্থাসহ সকল ধরণের অভিযোগ জানানো যাবে এবং এতদসংক্রান্ত বিষয়ে তথ্য পাওয়া যাবে।

 

বিল সংক্রান্ত অভিযোগঃ

 

  • বিল সংক্রামত্ম যে কোন অভিযোগ যেমনঃ চলতি মাসের বিল পাওয়া যায়নি, বকেয়া বিল, অতিরিক্ত বিল ইত্যাদির জন্য ‘‘সমিতির সদর দপ্তর/জোনাল অফিস/ সাব জোনাল অফিস/ অভিযোগ কেন্দ্র’’ এ যোগাযোগ করলে তাৎক্ষনিক সমাধান সম্ভব হলে তা নিম্পত্তি করা হবে। অন্যথায় একটি নিবন্ধন নম্বর দিয়ে পরবর্তী যোগাযোগের সময় জানিয়ে দেয়া হবে এবং পরবর্তী  ৭(সাত) দিনের মধ্যে নিম্পত্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

বিল পরিশোধঃ

 

  • সমিতির সদর দপ্তর/নির্ধারিত ব্যাংক/দপ্তর-এ গ্রাহক বিল পরিশোধ করতে পারবেন। এছাড়াও টেলিটক মোবাইল এসএমএস/ইউনিয়ন পরিষদের

           ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করতে পারবেন ।

  • যদি কোন বিদ্যুৎ বিল/মিটার রিডিং ক্রটিপূর্ণ মনে হয়,পরিশোধের তারিখের পূর্বে গ্রাহক অবশ্যই সমিতির সংশিস্নষ্ট দপ্তরকে অবহিত করে প্রয়োজনীয় সংশোধনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
  • নিমণম্নলিখিত কারণে গ্রাহকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন,জরিমানা ও সমিতির সদস্য পদ বাতিল হতে পারে। প্রয়োজনে তার বিরম্নদ্ধে ফৌজদারী মামলা হতে পারে।
    • গ্রাহক ইচ্ছাকৃতভাবে সমিতির সম্পত্তি বা সাজ-সরঞ্জামের ক্ষতিসাধন করলে।
    • অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার করলে বা মিটারে অবৈধ হস্তক্ষেপ করলে।
    • বিল ইস্যূর ৯০ দিনের মধ্যে বিল পরিশোধ না করলে।
    • গ্রাহক বা তার প্রতিনিধি সমিতির কর্মকর্তা বা কর্মচারীকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন বা শারীরিক নির্যাতন করলে কিংবা তার কর্তব্যকর্মে বাধা সৃষ্টি করলে

 

বিদ্যুৎ বিভ্রাটের অভিযোগঃ

 

বিদ্যুৎ সরবরাহ ইউনিটের নির্দিষ্ট ‘‘অভিযোগ কেন্দ্র’’ অথবা ‘‘এক অবস্থানে সেবা’’ -এ আপনার বিদ্যুৎ বিভ্রাটের অভিযোগ জানানো হলে আপনাকে অভিযোগ নম্বর ও নিম্পত্তির সম্ভাব্য সময় জানিয়ে দেয়া হবে। অভিযোগ নম্বরের ক্রমানুসারে আপনার বিদ্যুৎ বিভ্রাট দূরীভূত করার লক্ষ্যে ২৪ ঘন্টার মধ্যে নিস্পত্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোন কোন ক্ষেত্রে যদি নির্ধারিত সময়ে বিদ্যুৎ বিভ্রাট দূরীভূত করা সম্ভব না হয় তার কারণ গ্রাহককে অবহিত করা হবে।

অবৈধ ভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার, মিটারের হস্তক্ষেপ, বাইপাস, বিনা অনুমতিতে সংযোগ গ্রহন ইত্যাদি ক্ষেত্রে আইনগত ব্যবস্থা।

 বিদ্যুৎ আইনের (Electricity Act, 1910 & As Amended the  Electricity (Amendment) Act, 2006) ৩৯ ধারা অনুসারে এ ক্ষেত্রে নূন্যতম ০১ বছর হতে ৩ বছর পর্যমত্ম জেল এবং ১০ হাজার টাকা জরমিানার বিধান রয়েছে। তাছাড়া অবৈধ ভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহারের জন্য নিয়মনুযায়ী প্রাক্কলিত বিল এবং জরিমানা প্রদান করতে হবে। এছাড়াও উক্ত বিদ্যুৎ ব্যবহারের দ্বারা যদি বিদ্যুৎ সরবরাহ সংস্থা বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, মিটার, মিটারিং ইউনিট ইত্যাদি ক্ষতিগ্রস্থ হয় তবে ক্ষতিগ্রস্থ বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, মিটার, মিটারিং ইউনিট ইত্যাদি পুনরায় সচল করা গেলে ৫০% মূল্য অথবা সম্পন্ন ধ্বংসপ্রাপ্ত বা পুনরায় সচল করা যাবে না এরম্নপ সরঞ্জামের জন্য পূনঃস্থাপন ব্যয়সহ ১০০% প্রকৃত্র মূল্য আদায় করা হবে ।

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (UDC) এর মাধ্যমে অনলাইনে এবং টেলিটক রিটেইলার এর সহায়তায় এসএসএম এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সুবিধা  সমূহ

  • দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের  জনগনের মাঝে ডিজিটাল সুবিধা পৌঁছানো
  • অর্থ,শ্রম ও সময়ের সাশ্রয়
  • বিদ্যুৎ বিল প্রদানের স্বচ্ছতা ও জবাব দিহিতা বৃদ্ধি
  • অফিস ব্যবস্থাপনা ডিজিটাল ও আধুনিকায়ন
  • গ্রাহকদের দীর্ঘ সময় ধরে লাইনে দাঁড়ানোর ভোগামিত্ম লাঘোব
  • দেশের যে কোন স্থানে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সুযোগ
  • দিন রাত ২৪ ঘন্টা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সুবিধা
  • কাজের ফাঁকে মহিলাদের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল প্রদানের সৃষ্টি  ইত্যাদি ।

 

পাওয়ার ফ্যাক্টর, ক্যাপাসিটর ব্যবহারের সুবিধাবলী

 

সমিতি কর্তৃক সংযোগকৃত সকল প্রকার থ্রি ফেজ গ্রাহকদের বৈদ্যুতিক মিটারের  পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান ০.৯৫ ( শতকরা  ৯৫ ভাগ) বা তার উপরে রাখা সমীচিন।

১) সরবরাহ পয়েন্টে মাসিক গড় পিএফ ০.৯৫ থেকে পিএফ ০.৭৫ পর্যমত্ম প্রতি ০.০১ পিএফ কম এর জন্য গ্রাহকের বিলের এনার্জি চার্জের ওপর ০.৭৫ শতাংশ হারে সাবচার্জ প্রযোজ্য হবে।

২) পর পর ৩(তিন) মাস পাওয়ার ফ্যাক্টর ০.৭৫ এর নীচে নেমে গেলে গ্রাহককে নোটিশ প্রদান করতে হবে এবং চতুর্থ মাসেও পাওয়ার ফ্যাক্টর ০.৭৫ এর নীচে নেমে গেলে গুনগত মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের স্বার্থে গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ ১৫ (পনের) দিনের নোটিশ প্রদানপূর্বক বিচ্ছিন্ন করা হবে।

৩) উপরে উলিস্নখিত কারণে বিচ্ছিন্ন হওয়া গ্রাহককে যথাযথ শুদ্ধকরণ সরঞ্জাম স্থাপন এবং প্রযোজ্য পুনঃ সংযোগ চার্জ প্রদান সাপেক্ষে বিদ্যুৎ সংযোগ পুনর্বহাল করা যাবে।

পাওয়ার ফ্যাক্টরের মান ক্যাপাসিটর ব্যবহারের মাধ্যমে পাওয়ার ফ্যাক্টর উন্নত করিলে  নিমণবর্ণিত সুবিধা পাওয়া  যায়।

  • লাইনে ভোল্টেজ বেশী থাকে, মিটারের রিডিং কম আসে
  • বৈদ্যুতিক মটর কয়েলের তার কম গরম হয়, ফলে মটরের আয়ুষ্কাল বৃদ্ধি  পায়।
  •  গ্রাহককে পাওয়ার ফ্যাক্টর মাশুল দিতে হয় না, মটরের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায় ।     
  • মটরের কয়েলের বিদ্যুৎ লস কম হওয়ায় কয়েল গরম কম হয়, ফলে মটরের কয়েল পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা পায় ।
  • পাওয়ার ফ্যাক্টরের মান উন্নত করলে প্রাইমারি মিটারিং এর মটরের কয়েল পুড়ে যাওয়া থেকে  রক্ষা পায় ।

 

শ্রেণীভিত্তিক বিদ্যমান বিদ্যুতের মূল্যহার

 

(০১ ডিসেম্বর’ ২০১৭ খ্রিঃ থেকে প্রযোজ্য)

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন এর স্মারক নং-২৮.০১.০০০০.০১২.০৪.০১৩.১২-৬৪৮৭, তারিখঃ ২৩/১১/২০১৭ এবং স্মারক নং-২৮.০১.০০০০.০১২.০৪.০১৩.১২-৬৪৮৮, তারিখঃ ২৩/১১/২০১৭ খ্রিস্টাব্দ মূলে পলস্নী বিদ্যুৎ সমিতি সমূহের খুচরা বিদ্যুৎ বিক্রয় মূল্য হার এবং বিভিন্ন চার্জ/ফি নিমণবর্ণিতভাবে পুনঃ নির্ধারণ করা হয়েছে। বিদ্যুতের এই মূল্য হার ডিসেম্বর’২০১৭ খ্রিঃ হতে কার্যকর হবে।

নিম্নচাপ (এলটি), অনুমোদিত লোড-সিঙ্গেল ফেজ ০-৭.৫ কি.ও. এবং তিন ফেজ ০-৫০ কি.ও.।

ক্রঃ নং গ্রাহক শ্রেণী এনার্জি রেট/চার্জ (টাকা/ কি.ও.)
০১ এলটি-এঃ আবাসিক লাইফ লাইনঃ ০-৫০ ইউনিট ৩.৬২
প্রথম ধাপঃ ০-৭৫ ইউনিট ৪.০০
দ্বিতীয় ধাপঃ ৭৬-২০০ ইউনিট ৫.৪৫
তৃতীয় ধাপঃ ২০১-৩০০ ইউনিট ৫.৭০
চতুর্থ ধাপঃ ৩০১-৪০০ ইউনিট ৬.০২
পঞ্চম ধাপঃ ৪০১-৬০০ ইউনিট ৯.৩০
ষষ্ঠ ধাপঃ ৬০০ ইউনিটের উর্দ্ধে ১০.৭০
০২ এলটি বিঃ সেচ/কৃষি কাজে ব্যবহৃত পাম্প ৪.০০
০৩ এলটি সি  ১ঃ  ক্ষুদ্র শিল্প ফ্ল্যাট ৮.২০
    অফ পিক সময়ে ৭.৩৮
    পিক সময়ে ৯.৮৪
০৪ এলটি-সি ২ঃ নির্মাণ ১২.০০
০৫ এলটি-ডি ১ঃ শিক্ষা, ধর্মীয় ও দাতব্য প্রতিষ্ঠান এবং হাসপাতাল ৫.৭৩
০৬ এলটি-ডি ২ঃ রাসত্মার বাতি, পানির পাম্প ও ব্যাটারী চার্জিং স্টেশন ৭.৭০
০৭

এলটি-ইঃ

বাণিজ্যিক ও অফিস
ফ্ল্যাট ১০.৩০
অফ পিক সময়ে ৯.২৭
পিক সময়ে ১২.৩৬
০৮ এলটি-টিঃ অস্থায়ী ১৬.০০

 

বিবিধ চার্জ/ফি

 

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত বিবিধ সেবার বিবরণ গ্রাহক শ্রেণী/প্রযোজ্যতা ফি/চার্জ (টাকা)
বকেয়ার কারনে সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণ (ডিসি)/ বকেয়ার কারণে বিচ্ছিন্ন সংযোগ পুনঃ সংযোগ চার্জ (আরসি) এলটি

ক) এক ফেজ

৬০০.০০
খ) তিন ফেজ ১৫০০.০০
এমটি এবং এইচটি ৬০০০.০০
ইএইচটি ১০০০০.০০
গ্রাহকের অনুরোধে সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণ চার্জ (ডিসি)/গ্রাহকের অনুরোধে বিচ্ছিন্ন সংযোগ পুনঃ সংযোগ চার্জ (আরসি) এলটি০৬ ক) এক ফেজ ২০০.০০
খ) তিন ফেজ ৪০০.০০
এমটি এবং এইচটি ১০০০.০০
ইএইচটি ২০০০.০০
গ্রাহকের অনুরোধে মিটার পরীক্ষা চার্জ এলটি ক) এক ফেজ ২০০.০০
খ) তিন ফেজ ৪০০.০০
গ) এলটিসিটি ৬০০.০০
এমটি এবং এইচটি ১০০০.০০
ইএইচটি ২০০০.০০
জরুরী প্রয়োজনে ট্রান্সফরমার ভাড়া (সর্বোচ্চ ১৫ দিন, তবে বিশেষ বিবেচনায় দ্বিগুণ হারে ৩০ দিন) ১১ কেভি ট্রান্সফরমার, ড্রপআউট ফিউজ কাটআউটসহ ৩০০.০০/ দিন
৩৩ কেভি ট্রান্সফরমার, ড্রপআউট ফিউজ কাটআউটসহ ৬০০.০০/ দিন

উপরোক্ত বিদ্যুতের মূল্যহারের সাথে ন্যুনতম চার্জ, ডিমান্ড চার্জ, সার্ভিস চার্জ, মিটার ভাড়া ও অন্যান্য শর্তাবলীসহ মূল্য সংযোজন কর যথারীতি  প্রযোজ্য  হবে। বিদ্যুতের মূল্যহার সরকার  কর্তৃক অনুমোদিত এবং পরিবর্তনযোগ্য।

*  পিক সময়ঃ        বিকাল ৫ঃ০০ ঘটিকা হতে রাত ১১ঃ০০ ঘটিকা পর্যন্ত।

*  অফ-পিক সময়ঃ   রাত ১১ঃ০০ ঘটিকা হতে পরদিন বিকাল ৫ঃ০০ ঘটিকা পর্যন্ত।

 

গ্রাহকের জ্ঞাতব্য বিষয়

  • সান্ধ্য পিক-আওয়ারে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হোন। আপনার সাশ্রয়কৃত বিদ্যুৎ অন্যকে আলো জ্বালাতে সহায়তা করবে।
  • সংযোগ বিচ্ছিন্ন এড়াতে নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করুন এবং বিলম্ব মাশুল, সদস্য পদ বাতিল ও বকেয়া বিলের জন্য মামলা দায়েরের  ঝামেলা থেকে মুক্ত থাকুন।
  • ৮৩% বিদ্যুৎ বিল সাশ্রয়কল্পে মানসম্মত এনার্জি সেভিং বাল্ব (CFL/LED ) ও বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ব্যবহার করুন।
  • টিউব লাইটে Electronic Ballast ব্যবহার করে বিদ্যুৎ সাশ্রয় করুন।
  • বিদ্যুৎ একটি মূল্যবান জাতীয় সম্পদ। দেশের বৃহত্তর স্বার্থে এই সম্পদের সুষ্ঠু ও পরিমিত ব্যবহারে ভূমিকা রাখুন।
  • মিটার রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব আপনার। এর সঠিক সুষ্ঠু অবস্থা ও সীলসমূহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন  অন্যথাই-আপনিই দায়ী থাকবেন।
  • লোড শেডিং সংক্রামত্ম তথ্য সংস্থা সমূহের ওয়েব সাইট থেকে জানা যাবে। যদি কোন কারণে ওয়েব সাইট থেকে তথ্য না পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট এলাকার আওতাধীন কন্ট্রোল রুম/ অভিযোগ কেন্দ্র থেকে জানা যাবে।
  • বিদ্যুৎ চুরি ও এর অবৈধ ব্যবহার থেকে নিজে বিরত থাকুন ও অন্যকে নিবৃত্ত করুন। বিদ্যুৎ চুরি ও এর অবৈধ ব্যবহার রোধে আপনার জ্ঞাত তথ্য ‘‘গ্রাহক সেবা কেন্দ্রে/অভিযোগ কেন্দ্রে অবহিত করে নৈতিক দায়িত্ব পালন করুন।
  • ইদানিং একটি সংঘবন্ধ অসাধু চক্র চালু লাইন হতে ট্রান্সফরমার/বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি/তার চুরির সাথে জড়িত। সুতরাং আপনার এলাকার উপরিউক্ত চুরি রোধে তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করুন এবং সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলুন।

 

* রশিদ ব্যতিত কোন প্রকার অর্থ প্রদান করবেন না।

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter